Date Batha Hole Ki Korbo – দাঁত ব্যথা কমানোর উপায়, দাঁতের মাড়ি ব্যথা কমানোর ঔষধের নাম

Date Batha Hole Ki Korbo
Date Batha Hole Ki Korbo

Date Batha Hole Ki Korbo – দাঁত ব্যথা কমানোর উপায়

Date Batha Hole Ki Korbo: দাঁতে পোকা লেগে ব্যাথা কিংবা দাঁতের মাড়ি ফুলে ব্যথা খুবই যন্ত্রণাদায়ক, দাঁতের চিকিৎসা তেমনি কষ্টকরI দাঁতে ব্যথা একবার শুরু হলে বহু চেষ্টা করেও তার থেকে সহজে মুক্তি পাওয়া প্রায় অসম্ভব। খাওয়া-দাওয়া তো দূরের কথা ঘুম নাওয়া বন্ধ হয়ে যায় । প্রত্যেকদিন অসংখ্য মানুষ এই দাঁতে ব্যথার শিকার হয়। দাঁতে ব্যথার সারার উপায় খুঁজতে মানুষ প্রথমে ওষুধের দোকান থেকে পেইন কিলার খায়। তবে ব্যথা কমাটা শুধুমাত্র ক্ষণস্থায়ী। সময় যত এগিয়ে যায় ধীরে ধীরে ব্যথা বাড়তে থাকে। এই অসহ্য যন্ত্রণায় এক সময় মুখের চোয়াল ফুলে যায়। তবে দাঁতে অস্ত্র প্রচার করে দাঁত তোলার মতো বেদনাদায়ক চিকিৎসার মধ্যে দিয়ে যাওয়ার থেকে কিছু ঘরোয়া টোটকার সাহায্য নিয়ে দাঁতের ব্যথা কমানো। এর ফলে আপনার দাঁত তো বাঁচবেই এবং তাদের স্বাস্থ্যেরও উন্নতি হবে।

দাঁত ব্যথা শুরু হলে প্রত্যেকটা মানুষের মধ্যেই একটা প্রশ্ন ঘুরাফেরা করে – Date batha hole ki korbo?

দাঁত ব্যথার কারণ

আসলে অনেক সময় আমরা খাওয়ার পর ভালো করে দাঁত পরিষ্কার করি না। যার ফলে দীর্ঘদিন তাদের মধ্যে খাবার জমে থাকতে থাকতে দাঁতে গর্ত হয়ে যায়। এই গর্ত যত দাঁতের অন্দর পর্যন্ত পৌঁছায় তখন ব্যাথা শুরু হয়ে থাকে। এছাড়াও দাঁতে ব্যাকটেরিয়াল ইনফেকশন অথবা ক্যালসিয়ামের ঘাটতি থাকলেও এই সমস্যা হতে পারে। তাই সকলকে তাদের যত্ন নেওয়া উচিত। এই ধরনের সমস্যা যাদের হয় তারা বুঝতেই পারেনা যে কোন পথে গেলে তাদের সমস্যার সমাধান হতে পারে। তবে শুধুমাত্র ওষুধের মাধ্যমেই নয় কিছু ঘরোয়া টোটকা ব্যবহার করে আপনার সমস্যার সমাধান সহজেই করা যেতে পারে।

আরও পড়ুন >> মুখে গোটা দূর করার উপায়

দাঁতের ব্যথা কমানোর ঘরোয়া উপায়

1. সরষের তেল ও নুন– তাতে যন্ত্রণা কোপানোর খুব সহজ ঘরোয়া উপায় হল হাতে কয়েক ফোঁটা সরষের তেল নিয়ে তাতে এক সিমটা নুন মিশিয়ে আপনার দাঁতে লাগাতে পারেন। দেখবেন কয়েক ঘণ্টার মধ্যে ফল মিলছে হাতেনাতে।

2. গোলমরিচ ও নুন – গোলমরিচের গুড়ো ও নুন সমপরিমাণে মিশিয়ে জল দিয়ে পেস্ট বানিয়ে, এই পেস্ট ১০ থেকে ১৫ মিনিট লাগিয়ে রাখুন। দেখবেন ব্যথার থেকে রেহাই পাবে। তবে এই পেস্ট আরো কয়েকদিন ব্যবহার করবেন, দাঁতের ব্যথা কমে গেলেও। দাঁতের স্বাস্থ্যের খুবই উন্নতি হবে।

3. লবঙ্গ – লবঙ্গে রয়েছে কিছু ব্যথা কমানোর অপাদান, যা দাঁতে ব্যথা নিবারণে খুবই কার্যকর। কয়েকটি লবঙ্গ থেঁতো করে ২-৩ ফোঁটা অলিভ অয়েলের সঙ্গে মিশিয়ে দাঁতে লাগান। আধ গ্লাস জলের মধ্যে লবঙ্গ-তেল মিশিয়ে খেলে উপকার পাবেন।

4. কাঁচা রসুন – শরীরের যে কোন ব্যথা কমাতে কাঁচা রসুন অত্যন্ত কার্যকর। তাই দাতে ব্যথা কমাতে চাইলে এক কোয়া রসুন থেঁতো করে সামান্য পরিমাণ নুন মিশিয়ে দাতে লাগিয়ে রাখুন। আবার বেশি ব্যাথা হলে এক কোয়া রসুন চিবিয়ে খান, দেখবেন দারুন কাজ হবে।

5. নুন গরম জল – নুন গরম জল গলার ব্যথা, দাঁতের ব্যথা এবং মাড়ির ব্যথা উপশমে খুবই কার্যকর। এক গ্লাস জলে এক চামচ লবণ দিয়ে ভালো করে ফুটিয়ে কুলিকুচি করুন দেখবেন মাড়িতে ইনফেকশন কিংবা দাঁতের ব্যাথা কমে যাবে।

6. বরফের টুকরো – বরফের টুকরো তুলোতে মুড়ে ব্যথা দাঁতে চেপে রাখুন দেখবেন কিছুক্ষণ পরে ব্যাথা কমে গেছে।

7. হিং – আধ চামচ হিং-এর গুঁড়ো ৩/৪ ফোটা লেবুর রস মিশিয়ে ব্যথা দাঁতের গোড়ায় লাগান, দেখবেন খুব দ্রুত ব্যথা কমে গেছে

দাঁতের ইনফেকশনের ঔষধ এবং পেনকিলার না খেয়ে এই সমস্ত ঘরোয়া পদ্ধতি অবলম্বন করলে দাঁতের ব্যথা সেরে যাবে। 

দাঁতের ব্যথায় পেয়ারা পাতা

পেয়ারা পাতার রস দাঁতে ব্যথা কমানোর অন্যতম হাতিয়ার। পেয়ারা পাতায় রয়েছে অ্যান্টিইনফ্লেমেটরি গুণ। দাঁতে ব্যথা শুরু হলে দুটো পেয়ারা পাতা ভালো করে চিবিয়ে কিছুক্ষণ মুখের মধ্যে রাখুন। দেখবেন ফল মিলেছে হাতেনাতে। Date Batha Hole Ki Korbo?

দাঁতের ব্যথার গাছ 

দূর্বার রস দাঁতে ব্যথা কমাতে খুব উপকারী, দূর্বার রস দাঁতে ব্যথা কমাতে খুব উপকারী। এক গ্লাস জেল লবঙ্গ তেল মিশিয়ে খেলেও উপকার পাবেন। খুব বেশি যন্ত্রণা হলে এক কোয়া রসুন চিবিয়ে খান। আধ চা চামচ হিং গুঁড়ো ও লেবুর রসের সঙ্গে মিশিয়ে দাঁতে লাগান। দাঁতের উপর পেঁয়াজ রাখলেও আরাম পাবেন। এই সমস্ত দাঁতের ব্যথার গাছ ব্যবহার করলে ব্যথা থেকে সম্পূর্ণ নিস্তার পাবে সাইডএফেক্ট ছাড়াই। পোকা দাঁতের ব্যথা কমানোর এগুলি কার্যকারী ঘরোয়া ঔষধ।

দাঁতের মাড়ি ব্যথা কমানোর ঔষধের নাম

দাঁতের মাড়ি ব্যথা কমানোর ঔষধের নাম আপনি ডাক্তারের কাছে গেলেই পেয়ে যাবেন, কিন্তু আমাদের উপরে লিখিত উপায় গুলি ব্যবহার করলে অবশ্যই আপনার মাড়ির ব্যথা কমবে। আপনি নিশ্চিন্তে পদ্ধতিগুলি ফলো করতে পারেন।

তবে আপনার ক্ষেত্রে ঘরোয়া টোটকা গুলি কাজ না করলে অবশ্যই ডাক্তার কে দেখাও এবং ডাক্তারের পরামর্শ মেনে। (Date Batha Hole Ki Korbo?)